[PDF] হাওড়া জেলার ইতিহাস-Vol-I & II – অচল ভট্টাচার্য্য | Howrah Jeler Itihas-Vol-I & II – Achal Bhattacherjee

[Download] হাওড়া জেলার ইতিহাস – Vol-I – অচল ভট্টাচার্য্য | Howrah Jeler Itihas- Vol-I- Achal Bhattacherjee

হাওড়ার স্থায়ীভাবে বাস শুরু করা, হাওড়া-বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ডা: শরচরণ পাল মহাশয়ের অনুরোধে তাঁর পত্রিকার নিয়মিত লেখক গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত হওয়া এবং নিঃ ডাঃ বঙ্গসাহিত্য সম্মেলনের হাওড়া-শাখার যুগ্ম-সম্পাদকের পদে বৃত্ত হওয়া—এই তিনটি ঘটনাই আমাকে হাওড়া জেলার ইতিহাস রচনায় প্রকৃ করে। প্রথম যখন কাজ শুরু করি তখন এর ব্যাপকতা সম্যক অনুভব করতে পারিনি। একমাত্র কলিকাতা ব্যতীত পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে ছোট জেলা হাওড়া, কিন্তু বিশাল এর ঐতিহাসিক ও ভৌগলিক প্রেক্ষাপট। বিচিত্র তার অর্থনৈতিক ও সাংস্কৃতিক জগৎ। একদা ব্রিটিশ ভারতের এবং বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের রাজ- ধানী কলিকাতা মহানগরীর বিপরীত হাওড়ার অবস্থান যেন প্রায় সর্ববিষয়েই তাকে কলিকাতার বিপরীত করে তুলেছে। কলিকাতা ও হাওড়া, গঙ্গানদীর পূর্ব ও পশ্চিম পাড়ের এই শহর ভু’টি “ইস্পাতের- হাইফেন” দিয়ে যুক্ত হ’লেও তুই নগরীর একই গল্প নয়।

সশটা-পাঁচটা বিশ্বস্ত ভাবে উদরাজের সংস্থান করার পর যেটুকু সময় উদ্বৃত থাকে তা কোথাও রাস্তাহীন, কোথাও বা অপ্রতুল যোগাযোগ ব্যবস্থা সমন্বিত গ্রামের সমবায়ে গঠিত হাওড়া জেলার সর্বত্র ঘুরে ইতিহাসের উপাদান সংগ্রহের পক্ষে পৰ্যাপ্ত নয়, আবার যেটুক সংগ্রহ করেছি তারও সবটুকু প্রকাশ করা সম্ভব হ’ল না। কারণটা মূলত: আর্থিক । তবু যেটুকু প্রকাশিত হ’ল তা কেবলমাত্র সাহিত্যিক অগ্রজ ডাঃ প্রসাদ বন্দ্যোধ্যায়ের আগ্রহাতিশয্যে ও আনুকুল্যে ।

হাওড়া সম্পর্কে ইতিপূর্বে যে সমস্ত লেখা প্রকাশিত হয়েছে আালোচ্য গ্রন্থ প্রণয়নে সেগুলির সাহায্য নেওয়ার পরও তথ্য সংগ্রহের কাজে এত বেশী সংখ্যক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সাহায্য নিয়েছি যে সীমিত পরিসরে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ সম্ভব নয়। তাঁদের কাছে মার্জনা ভিক্ষা করে মাত্র কয়েক জনের নাম উল্লেখ করছি। এঁরা হ’লেন—সর্বশ্রী আভাস মজুমদার, সম্পাদক হাওড়া কাহিনী ও সাহিত্যবাণী, প্রবাল রায়- রাউতারা শ্রীকৃষ্ণ চৈতন্য ঠাকুর শাস্ত্রী – ধার্সা, পাঁচুগোপাল রায় রসপুর, আশরাফ আলি মল্লিক— শাখরাইল, মুকুল ঘোষাল – মুগকল্যাণ, ভুবনেশ্বর বন্দ্যোপাধ্যায় বলুহাটী, পলিল বহু খড়িয়প, এ. ভি. এ্যামবেট—প্রাক্তন প্রিন্সিপ্যাল সেন্ট টমাস চার্চস্কুল, সুনীল দাস—বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ, রতন দাস – কলিঃ বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার, শৈলেন্দ্র নাথ মুখার্জী — নিজবালিয়া, সুদর্শন দাস ও সুকুমার চট্টোপাধ্যায়—পাচলা, অজয় কুমার মিত্র – সহঃ জনসংযোগ আধিকারিক বিশ্বভারতী, শ্রীনিকেতন, অভয় ভট্টাচার্য্য- সারদা, আমতা, সনৎ কুমার বসু ও ভবতারণ বেজ—উঃ গোবিন্দপুর, জগৎ- বল্লভপুর, অজিত দাস—সালকিয়া- নীরেন নেন—বেলুড়, বিভুতি ভূষণ মুখোপাধ্যায়—সাত্রাগাছি। তিমথিয়াম হোম, অধ্যাপক বিশপস্ কলেজ কলিকাতা, সীতাংশু মোহন বন্দ্যোপাধ্যায়—বালী বাসুদেব যোশেল— সারেঙ্গা, ডাঃ চন্দন রায় চৌধুরী — শিবপুর, শ্রী নিশীথ রঞ্জন রায়—কিউরেটার, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল এবং কলিকাতার গণেশ লালওয়ানী, বারমীবাস মুন্নু ও কন্যাপারী।

পাণ্ডুলিপি অবস্থার গ্রন্থটির অংশবিশেষ পড়ে এবং প্রয়োজন ৰোধে উপদেশ, নির্দেশ ও তথ্যাদি দিয়ে গ্রন্থকারকে বাধিত করেছেন সর্বত্রী ডঃ অসিত বন্দ্যোপাধ্যায়, ডঃ সুভাষ বন্দ্যোপাধ্যায়, ডঃ নিমাই সাধন বসু, অধ্যাপক শঙ্করী প্রসাদ বসু, হুগলী জেলার ইতিহাস ও বঙ্গ সমাজ প্রণেতা সুধীর কুমার বসু, ডঃ স্বপন বসু, ডঃ অতুল সুর, তারাপদ সাঁতরা, গোপাল চন্দ্র রায় ও আরো অনেকে। এদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

ধারাবাহিক ভাবে গ্রন্থটির অংশ বিশেষ সাহিত্য-ভারতী, আর্থিক-প্রসঙ্গ, নিঃসঙ্গ অবসরে, হাওজা-কাহিনী, হাওড়া-বাৰ্ত্তা, সাহিত্য-বাণী, ভাৰীযুগ প্রভৃতি পত্রিকায় প্রকাশিত হবার সময় যেসব পাঠক ও পাঠিকা পত্রযোগে লেখককে উৎসাহ দিয়েছেন, গ্রাম-গ্রামান্তরে ঘুরে তথ্যাদি সংগ্রহের কাজে যাদের সাহায্য পেয়েছি এই সুযোগে তাদেরকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

ধন্যবাদ জানাই মানচিত্র অঙ্কনে এবং ব্লক নির্মাণে সহযোগিতার জন্ম ঐদিদীপ বাগ ও শ্রীপঞ্চানন ভট্টাচার্য্যকে ।

নির্দিষ্ট সময়ে মুদ্রণ কার্য্য শেষ করার জন্য ঐ শশধর রায় ও তাঁর দুই সহকর্মীকেও ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

বিদেশীর দৃষ্টিতে হাওড়া পর্যায়ের চিত্রগুলি ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল কর্তৃপক্ষের এবং মনসামঙ্গলের পট-চিত্রটি কলিঃ বিশ্ববিদ্যালয়ের আশুতোষ মিউজিয়ামের এবং তালপাতায় ছাপা চণ্ডী এবং তুলট কাগজে ছাপা দূর্গাপূজা পদ্ধতির আলোকচিত্র বীরজিত চট্টোপাধ্যায়ের লৌহতে সংগৃহীত।

বিভিন্ন জায়গা থেকে সংবাদ-পুষ্প সংগ্রহের যে ইতিহাস- মানিকাটি তৈরী করেছি যদি তা পাঠক-পাঠিকাদের মনোরঞ্জনে সমর্থ হয় তবেই গ্রন্থকারের পরিশ্রম সার্থক।

স্বল্পপরিসরের আলোচনায় সকল বিষয়ের প্রতি হয়ত সুবিচার করা সম্ভব হয়নি তাই আমার স্ব-গ্রামী কবি মালাধর বসু’র ভাষায়—
“স্তে তৃণ ধরি বলি সকলের ঠাঞী,
যদি দোষ থাকে “গ্রন্থে” ক্ষমা ভিক্ষা চাই।”

বিনীত
অচল ভট্টাচাৰ্য্য
২১. ০২. ১৯৮০

Book & Author Name:[PDF] হাওড়া জেলার ইতিহাস Vol-I By- অচল ভট্টাচার্য্য
LanguageBengali
e-BookPDF
File Size32.4 MB
[Download] হাওড়া জেলার ইতিহাসVol-IClick Here
Last Up-Date04-11-2023
আমাদের কাজ ভালো লাগলে আমাদের গ্রূপের সদস্য হয়ে পাশে থাকবেন..

[Download] হাওড়া জেলার ইতিহাস – Vol-II – অচল ভট্টাচার্য্য | Howrah Jeler Itihas- Vol-II- Achal Bhattacherjee

হাওড়া জেলার ইতিহাস-এ এখনগওে পালোচিত ছিল লো ইতিহাস, ভূগোল, অর্থনীতি, শিক্ষা, ভাষা ও সাহিত্য এবং লোকপ্রতি এই কয়টি বিষয়ের। দ্বিতীয় পতে পারত ছট বিষয়ের গালোচনা কর । তৃতীয় মঞ্চের আলোচ্য বিষয়ের পশু হবে স্বাধীনতার বেদীমূলে হাওড়া জেলার আত্মদানের ইতিবৃত্ত।

প্রথম খণ্ডের ভূমিকায় যে কথাগুলি বলা হছেছিল, দ্বিতীয় খণ্ডের ক্ষেত্রেও –সেই সব মন্তব্যের অনেকগুলিরই পুনরাবৃত্তি করা আবশুক ।

গ্রন্থরচনার কাজে উৎসাহ দিয়ে এবং তথ্য সংগ্রহে সাহায্য করতে বহু ব্যক্তি যেমন সতঃপ্রবৃত্ত হ’য়ে এগিয়ে এসেছেন অনেকের কাছে তেমন-ই বারবার সহযোগিতা প্রার্থনা করেও নিরাশ হয়েছি। দ্বিতীয়তঃ যে সব তথ্য আলোচ্য বিষয়গুলি সম্পর্কে সংগ্রহ করেছি, তার এক ভগ্নাংশ মাত্র-ই প্রকাশ করা সম্ভৰ হ’ল মূলতঃ অর্থনৈতিক কারণে

প্রথম খণ্ড রচনায় যারা সক্রিয় সহযোগীর ভূমিকা নিয়েছিলেন, দ্বিতীয় খণ্ড রচনার সময় তাঁদের সংগে আরও অনেকে যোগদেন। এঁদের সকলের নাম উল্লেখ করে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা বাঞ্ছনীয় হলেও গ্রন্থের সীমিত পরিসরে সেটি সম্ভব নয়। তাই সকলের কাছে মার্জনা চেয়ে মাত্র কয়েকজনের নাম উল্লেখ করছি। এঁরা হলেন—সর্বত্রী সন্ন্যাসী চরণ সাধুখী; প্রাক্তন শিক্ষক দীনবন্ধু ইনটীটিউশান ব্রাক্ষ, [ সম্প্রতি পরলোক গ] চিন্ময় মানুষী অরবিন্দ হালদার ( সেবাইত বেতাই চণ্ডী, লক্ষ্মণ নাথ, প্রধান শিক্ষক, দীনবন্ধু ইনষ্টিটিউশান মেন, গোপাল বহু ( মাকরাইল) প্রবীর গোপাল মুখোপাধ্যায় সুশান্ত চন্দ, আভাষ মজুমদার, সজলচর, পূর্ণ মিত্র, ও আলোকদের মুখোপাধ্যায় [ শিবপুর ], ডা: হরেন্দ্র নাথ মোব, প্রিন্সিপ্যাল, ক্যালকাটা ন্যাশানাল মেডিকেল কলেজ, ডা: বিমলেন্দু মুখার্জী, মানবপাল, কন্যান ব্রহ্মচারী, সহঃ সম্পাদক- বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলন, মোহনলাল কাপড়ী, সম্পাদক আলেয়া, কৃষ্ণচন্দ্র ভড় সম্পাদক, সত্যলোক, বিনয় চক্রবর্তী (আকুল ), আীর মিত্র, সুবোধ দেব সেন, সম্পাদক-লেখন, রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায় সম্পাদক, নিঃ ভা: শিশু সাহিত্য সম্মেলন, রুষের হারা (বেলুড়), নীলরতন সরকার (বেলুড় ), সমর বন্ধ জন সংযোগ অধিকতা, সি. এম ডি, এ, নারায়ণ দত্ত, প্রচার আধিকারিক পূর্ব রেলপথ, নীরেন সেন যুগ্ম-সম্পাদক, নিঃ ভাঃ বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলন, হাওড়া শাখা, ফণীন্দ্র নাথ মুখোপাধ্যায় [বেলুড় ] অজিত দাস (সালকিয়া ) কবি নিমাই মান্না (চাকপোতা আমতা), আচার্য সর্বেশ্বর গোস্বামী [ বেদান্ত, গঠ, বীরশিবপুর ], ইন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য এবং তারাপদ ভট্টাচার্য (আ) গোরাচাদ ভট্টাচার্য, (কলিকাতা) এবং সালকিয়ার চিন্তা বহু।

গ্রন্থরচনার প্রায় প্রতি পদক্ষেপে নানাবিধ আলোচনার মাধ্যমে প্রয়োজনীয় নির্দেশ পেয়েছি অধ্যাপক নিশীথ রঞ্জন রায়, ডঃ অসিত বন্দোপাধ্যায়, অধ্যাপক শঙ্করী প্রসাদ বসু, ড: নিমাই সাধন বহু, ঐ গোপাল চন্দ্র রায়, ডঃ সুভাৰ বন্দোপাধ্যায় রাধারমন মিত্র, শিবপুরের ইন্ডিয়ান বোটানিকেল গার্ডেন-এর প্রাজন কিউরেটার ডঃ স্বীল মুখোপাধ্যায় প্রভৃতির কাছ থেকে। এদের নিকট আমি কৃতজ্ঞ।

বহু সাহিত্য সম্মেলৰ ভিৰ न गाহিত্য গোষ্ঠ, হাওড়া বা- পত্রিকা, হাওড়া বিজ্ঞান পরিব, অহীলনী, নৈবেদ্ধ, দেশবন্ধু বালিকা বিজ্ঞালয়, গ্রামীन সম্মেলন, সাকরাইল গার্লস হাই কুসুমকুমারী গার্লন প্রাইমারী স্কুল, লিখতে পড়তে শেখাও (বাগনান)- সাহিত্য প্রয়ানী, বালিচক যোগব্যায়াম মন্দির প্রভৃতি বহু প্রতিষ্ঠান তাদের আয়োজিত সেমিনার, সাহিত্য সভার ও অন্তান্ত অনুষ্ঠানে আসার হাওড়া জেলার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনার সুযোগ দিয়ে গ্রন্থ রচনা আ

উৎসাহ বৃদ্ধি করেছেন। এদেরকে হাওড়া কাহিনী, সাহিত্য বানী, অভিনব অগ্রনী প্রভৃতি পত্রিকা সমূহ তথ্য সংগ্রহের জন্য লেখকের আবেদন ौদन নিষ্ঠার সংগে প্রচার করে আমাকে চিরণী করেছেন।

বিশেষ যত্নসহকারে মানচিত্র অঙ্কন এবং ব্লক নির্মাণে সহযোগিতার প ধন্যবাদ জানাই এ দিলীপ বাগ ও শ্রী পঞ্চানন ভট্টাচার্যকে। তাড়াতাড়ি ছাপার কাজ শেষ করার কৃতিত্ব গোবর্ধন, প্রেসের স্ত্রী প্রশান্ত ঘোষ ও তাঁর সহকর্মীবৃন্দের এদেরকেও ধন্যবাদ ।

অচল ভট্টাচার্য

Book & Author Name:[PDF] হাওড়া জেলার ইতিহাসVol-II By- অচল ভট্টাচার্য্য
LanguageBengali
e-BookPDF
File Size22.3 MB
[Download] হাওড়া জেলার ইতিহাসVol-IIClick Here
Last Up-Date04-11-2023
আমাদের কাজ ভালো লাগলে আমাদের গ্রূপের সদস্য হয়ে পাশে থাকবেন..

Leave a Comment